Online Update

Keep in touch for online update.
পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যের জন্য রয়েছে অনলাইন আপডেট। ফেসবুক ফ্যানপেজ-এর কুইজে অংশগ্রহন করতে লগ-ইন কর facebook.com/Panjeree। কুইজে অংশগ্রহন করে প্রতি সপ্তাহে জিতে নাও আকর্ষনীয় পুরষ্কার।

৩৬তম বিসিএস শুরু হোক শুরুর প্রস্তুতি


দুয়ারে কড়া নাড়ছে ৩৬তম বিসিএস প্রিলিমিনারি। তাই এখনই প্রস্তুতি নেওয়া চাই জোরেশোরে। প্রিলিমিনারি টেস্ট হচ্ছে বিসিএসের প্রথম ধাপ। বলা যায়, লিখিত পরীক্ষার চাবি! পরীক্ষা শুরুর আগে হাতে যেটুকু সময় আছে, তা সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে তা লিখিত পরীক্ষার জন্যও সহায়ক হবে। তাই প্রিলিমিনারির জন্য প্রস্তুতি নেওয়া উচিত সময়ের হিসাব কষে। এ সময় নিয়মিত ৮ থেকে ১০ ঘণ্টা পড়াশোনা করা উচিত। প্রস্তুতির সময়টুকু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ অপ্রয়োজনীয় কাজ থেকে নিজেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখুন। এ সময়টুকুর সঠিক ব্যবহারের ওপরই নির্ভর করছে আপনার জীবনের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ।
আপনারা নিশ্চয় জানেন, ৩৬তম বিসিএসও অনুষ্ঠিত হবে নতুন নিয়মে। বিসিএসের নতুন নিয়ম অনুযায়ী প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় দুই ঘণ্টা সময়ে ১০টি বিষয়ের ওপর মোট ২০০ নম্বরের এমসিকিউ পদ্ধতিতে উত্তর দিতে হবে।
৩৫তম বিসিএস থেকে সিলেবাসে নতুন যুক্ত হয়েছে ভূগোল, পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় ১০ নম্বর, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি ১৫, গাণিতিক যুক্তি ১৫, মানসিক দক্ষতা ১৫ এবং নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন বিষয়ে ১০ নম্বরের প্রশ্ন। এ ছাড়া অন্যান্য বিষয় আগের সিলেবাস অনুযায়ীই থাকছে।
দেশের সবচেয়ে বড় প্রতিযোগিতামূলক এই পরীক্ষায় কয়েক লাখ পরীক্ষার্থীর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে হবে আপনাকে। তাই প্রস্তুতিটা হওয়া চাই নিখুঁত। আমি বলব, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের ক্ষেত্রে মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিকে পড়ে আসা পাঠ্যবইয়ে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিন। এ ছাড়া বাজার থেকে বিভিন্ন লেখকের বই সংগ্রহ করে চর্চা করতে পারেন। বাংলার মতো ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যের ক্ষেত্রেও একইভাবে প্রস্তুতি নিতে পারেন। এর পাশাপাশি ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। এতে করে ইংরেজি বাদেও বহুমুখী সুবিধা পাওয়া যাবে। আর যত বেশি নতুন শব্দ জব্দ করা যায়, ততই কাজে দেবে। তাই নিজের ইংরেজি তথ্যভান্ডার সমৃদ্ধ করুন।
শুধু বাংলা বা ইংরেজির প্রস্তুতির ক্ষেত্রেই নয়, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের বইগুলো থেকে গাণিতিক যুক্তি, সাধারণ বিজ্ঞান, ভূগোলসহ অন্যান্য বিষয়েও জানা যাবে। আর সাধারণ জ্ঞানে দক্ষতা বাড়াতে দৈনিক পত্রিকা পড়ার বিকল্প নেই। এ জন্য টিভির সংবাদেও চোখ রাখা যেতে পারে। পত্রিকা পাঠের সময় যে তথ্যগুলো গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়, তার নোট নিতে হবে। এ ছাড়া সাধারণ জ্ঞানের জন্য বাজারে পাওয়া যায় এমন বইগুলো তো পড়তে হবেই। দৈনিক পত্রিকাগুলো ভালো করে পড়লে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে সুস্পষ্ট ধারণার পাশাপাশি পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রস্তুতিতে সহায়ক হবে। তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অর্জনগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা রাখুন। জানতে হবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অর্জনগুলো সম্পর্কেও।
পুরোনো বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রগুলো চর্চার পাশাপাশি মডেল টেস্টের যেসব বইপত্র বাজারে পাওয়া যায়, সেগুলো নিশ্চয়ই আপনি এরই মধ্যে সংগ্রহ করেছেন, ঘরে বসে সেসব মডেল টেস্ট নিয়মিত চর্চা করুন। একটি বিষয় পড়তে পড়তে ক্লান্ত বোধ হলে, যে বিষয় আপনার কাছে সহজ লাগে, সে বিষয়টি হাতে তুলে নিন।
আর একটা জরুরি কথা, পরীক্ষার হলে কোনো প্রশ্নের উত্তর জানা নেই মনে হলে ঘাবড়ে যাবেন না। সেটি বাদ দিয়ে যেগুলো নিশ্চিতভাবে পারেন সেগুলোর উত্তর আগে দিন। পরবর্তীতে সময় পেলে বাকিগুলোর উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করুন। যেহেতু নেগেটিভ মার্কিং আছে, সুতরাং পুরোপুরি নিশ্চিত না হয়ে উত্তর দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। এই দুইটি ঘন্টা আপনি মাথা ঠান্ডা রেখে পরীক্ষা দিন। আশা করি সফল হবেন।
 

Related Updates