Online Update

Keep in touch for online update.
পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যের জন্য রয়েছে অনলাইন আপডেট। ফেসবুক ফ্যানপেজ-এর কুইজে অংশগ্রহন করতে লগ-ইন কর facebook.com/Panjeree। কুইজে অংশগ্রহন করে প্রতি সপ্তাহে জিতে নাও আকর্ষনীয় পুরষ্কার।

প্রাথমিকে এক কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি দেওয়া হবে


 
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার বলেছেন, আগামীতে কোনো শিশু-শিক্ষার্থী উপবৃত্তির বাইরে থাকবে না। আগামী বছর থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি প্রদান করা হবে।
 
মঙ্গলবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে 'দুর্গম এলাকায় প্রাথমিক শিক্ষার প্রতিবন্ধকতা' বিষয়ক নীতিনির্ধারনী এক সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা জানান। হাওর অঞ্চলের প্রাথমিক শিক্ষার হালচাল নিয়ে ব্র্যাকের পরিচালিত এক গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন উপলক্ষে এ সংলাপের আয়োজন করা হয়।
 
সংলাপে উঠে আসে, প্রাথমিক শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়ার হার হ্রাস ও ভর্তির হার বাড়লেও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জন করতে হলে এর গুণগত মান ও বাজেট বৃদ্ধির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। এছাড়া শিক্ষার ব্যয় বহনে পরিবারের অক্ষমতাকে শিশুদের প্রাথমিক স্কুল থেকে ঝরে পড়ার প্রধান কারণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়।
 
ব্র্যাকের শিক্ষা কর্মসূচির পরিচালক শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আবু হেনা মোস্তফা কামাল, জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন কমিটির সদস্য কাজী ফারুক আহমেদ, ব্র্যাক অ্যাডভোকেসি ফর সোশ্যাল চেঞ্জ অ্যান্ড আইসিটি'র ডিরেক্টর কে এ এম মোর্শেদ, সিনিয়র ডিরেক্টর (স্ট্র্যাটেজি, কমিউনিকেশন অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট) আসিফ সালেহ প্রমুখ।
 
গবেষণা পত্র উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এ এস এম আমানুল্লাহ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।
 
শিক্ষায় সরকারের বাজেট বরাদ্দের প্রসঙ্গ টেনে মন্ত্রী আরও বলেন, সীমিত বাজেটের কথাও চিন্তা করতে হবে। যেটুকু সম্পদ আছে তা দিয়ে চলতে চাই।  শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকরা মনোযোগী না হওয়ায় সব শিক্ষার্থী একই মানের হয় না মন্তব্য করে মন্ত্রী শিক্ষকদের মনোযাগী হয়ে পাঠদানের আহ্বান জানান।
 
তিনি বলেন, প্রাথমিকে শিক্ষার্থীদের এনরোলমেন্টে (তালিকাভুক্তি) ফাঁকি আছে। তবে অভিভাবকদের মধ্যে মানসিক বোধ জাগ্রত হওয়াতে এনরোলমেন্ট বেড়েছে। প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে অনলাইন স্কুল চালু করা যায় কিনা সে বিষয়ে চিন্তা করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।
 
শফিকুল ইসলাম বলেন, হাওর অঞ্চলের প্রায় ২০ লাখ শিক্ষার্থীকে বাদ দিয়ে সার্বিক শিক্ষার উন্নয়নের চিন্তা করা যাবে না। শিক্ষায় কমপক্ষে চার ভাগ বরাদ্দ না হলে এসডিজি পূরণে ঘাটতি হবে বলেও তিনি মনে করেন।
 

Related Updates