Online Update

Keep in touch for online update.
পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যের জন্য রয়েছে অনলাইন আপডেট। ফেসবুক ফ্যানপেজ-এর কুইজে অংশগ্রহন করতে লগ-ইন কর facebook.com/Panjeree। কুইজে অংশগ্রহন করে প্রতি সপ্তাহে জিতে নাও আকর্ষনীয় পুরষ্কার।

রাজধানীর ৩৫ সরকারি স্কুলে ৭৬ হাজার আবেদন আসন প্রতি লড়বে ৭ জন


 
ঢাকা মহানগরীর সরকারি ৩৫টি স্কুলে প্রথম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত ২০১৬ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিতে ৭৬ হাজার ১৯৬টি আবেদন জমা পড়েছে।গত মঙ্গলবার মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) সূত্রে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, এসব স্কুলে ভর্তিযোগ্য শূন্য আসন রয়েছে ১০ হাজার ২০০টি। সেই হিসেবে প্রতিটি আসনের বিপরীতে   ৭টিরও বেশি আবেদন পড়েছে। গত ১৩ ডিসেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত এই আবেদনের শেষ সময় থাকলেও ফি জমা দেওয়ার শেষ সময় ছিল গতকাল রাত ১২টা পর্যন্ত। এবারই প্রথম স্কুলগুলোকে ৪০ শতাংশ ‘এলাকা কোটা’ সংরক্ষণ করতে হবে। ইতোমধ্যেই এ ব্যাপারে ক্যাচমেন্ট এরিয়া নির্ধারণ করা হয়েছে। 

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) সূত্র জানায়, গতবছর থেকেই রাজধানীর সরকারি স্কুলে অনলাইনে আবেদন শুরু হলেও এবারই প্রথম জেলা পর্যায়েও (চট্টগ্রাম মহানগরী ব্যতীত) একইভাবে আবেদন গ্রহণ করা হয়। সারা দেশের ১৭৫টি সরকারি স্কুল এই অনলাইন আবেদনের আওতায় আসে। সবমিলিয়ে আবেদন পড়ে ১ লাখ ৬০ হাজার। ২০১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে দেশের সব সরকারি স্কুলেই অনলাইনে ভর্তি করা হবে।

অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ‘এ’ গুচ্ছের বিদ্যালয়গুলোর ৩ হাজার ৮২৮টি আসনের বিপরীতে আবেদন ফরম জমা পড়েছে ২৫ হাজার ৪৬৪টি। ‘বি’ গুচ্ছের বিদ্যালয়গুলোর ৩ হাজার ১০৪টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ২৬ হাজার ৯৭৬টি এবং ‘সি’ গুচ্ছের বিদ্যালয়গুলোর ৩ হাজার ৩০৫টি আসনের জন্য আবেদন জমা পড়েছে ২৩ হাজার ৫৬০টি।

একজন শিক্ষার্থী একটি ভাগের একটি স্কুল থেকেই আবেদনের সুযোগ পেয়েছে। এরমধ্যে প্রথম শ্রেণি রয়েছে ১৪টি স্কুলে। এতে আসন সংখ্যা প্রায় এক হাজার ৭৫০টি। আর প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত এবার শূন্য আসন প্রায় সাড়ে আট হাজার। প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি লটারি অনুষ্ঠিত হবে ২৬ ডিসেম্বর। দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ‘এ’ গ্রুপের লিখিত পরীক্ষা ১৭ ডিসেম্বর, ‘বি’ গ্রুপের লিখিত পরীক্ষা ১৮ ডিসেম্বর ও ‘সি’ গ্রুপের লিখিত পরীক্ষা ১৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে নবম শ্রেণিতে ভর্তি করা হবে। ফল দেওয়া হবে ২৭ ও ২৮ ডিসেম্বর। 
 

Related Updates