Online Update

Keep in touch for online update.
পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যের জন্য রয়েছে অনলাইন আপডেট। ফেসবুক ফ্যানপেজ-এর কুইজে অংশগ্রহন করতে লগ-ইন কর facebook.com/Panjeree। কুইজে অংশগ্রহন করে প্রতি সপ্তাহে জিতে নাও আকর্ষনীয় পুরষ্কার।

২০১৬ সালের ক্যাডেট কলেজে ভর্তি পরীক্ষা


 
বিশেষ পরামর্শ
প্রিয় ক্যাডেট কলেজ ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা, আগামী শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত সর্বমোট ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তোমাদের প্রবেশপত্রে পরীক্ষার কেন্দ্রের নাম লেখা আছে।
পরীক্ষার বিষয় জেনে নাও:
প্রিয় পরীক্ষার্থী বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও সাধারণ জ্ঞানে প্রচুর পড়াশোনা করেছ। পরীক্ষায় বাংলায় ৪০; ইংরেজিতে ৬৫; গণিতে ৫৫ ও সাধারণ জ্ঞানে ৪০ নম্বর থাকবে। ২০০ নম্বরের সম্পূর্ণই অবজেকটিভ বা নৈর্ব্যক্তিক হবে না। শূন্যস্থান পূরণ, এককথায় উত্তর ও কিছু রচনামূলক প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। বাংলায় ও ইংরেজিতে ৫-১০ বাক্যের অনুচ্ছেদ, যৌক্তিক অনুচ্ছেদ ও গল্প লিখতে হতে পারে। পরীক্ষায় তোমার জ্ঞান, অনুধাবন ও সৃজনশীলতার পরিচয় দিতে হবে।

ভয় পাওয়ার কিছু নেই:
প্রশ্ন যে ধরনেরই হোক না কেন, ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। প্রশ্ন শুধু তোমার একার জন্যই সহজ বা কঠিন হবে না, সবার জন্যই হবে। তাই সহজ হলেও যা, কঠিন হলেও তা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় যারা সবচেয়ে বেশি নম্বর পাবে তারাই ভালো করবে। তোমার চেষ্টা থাকবে যত বেশি পারো দ্রুতগতিতে উত্তর করা, পরীক্ষার হলে কোনোভাবেই মনঃসংযোগে যেন ব্যাঘাত না ঘটে, তা নিশ্চিত করা। একটি কথা মনে রাখবে, পরীক্ষায় ভালো করতে হলে দ্রুত লেখা, নির্ভুল লেখা ও সুন্দর হস্তাক্ষরের কোনো বিকল্প নেই।

পরীক্ষার আগের রাতে করণীয়:
পরীক্ষার আগের রাতে অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাত ১০টার মধ্যে শুয়ে পড়বে। অনেকেই পরীক্ষার আগের রাতে অনেকক্ষণ জেগে থাকে। তা ঠিক নয়। শোয়ার আগে ক্যাডেট কলেজের প্রবেশপত্র, জ্যামিতি বক্স, কলম-পেনসিল নির্ধারিত স্থানে রাখবে, সকালে উঠে যেন খোঁজাখুঁজি করতে না হয়। সকালে কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করে নাশতা খেয়ে কেন্দ্রের উদ্দেশে বেরিয়ে পড়বে, যাতে অবশ্যই নির্ধারিত কেন্দ্রে আটটার মধ্যে পৌঁছে যেতে পারো। কেন্দ্রে গিয়ে পরিচিত বন্ধুবান্ধব পেয়ে উল্লসিত হয়ে দৌড়াদৌড়ি শুরু কোরো না, বরং চুপচাপ থাকবে। সাড়ে আটটায় তোমাদের লাইনে দাঁড়াতে হবে। লাইনে দাঁড়িয়ে সারিবদ্ধভাবে হলো রুমে প্রবেশ করবে। তোমার কেন্দ্রের অবস্থান যদি তোমার অভিভাবকের জানা না থাকে, তাহলে পরীক্ষার আগের দিন গিয়ে দেখে আসা ভালো।

প্রতি নম্বরের জন্য সময় ৪৫ সেকেন্ড:
প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় অনেক কৌশলী হতে হয়। আইনস্টাইন বলেছিলেন, ্তুজ্ঞানের চেয়ে কল্পনা বেশি প্রয়োজন্থ, কারণ বইয়ে সবকিছু লেখা থাকে না,
উপস্থিত বুদ্ধি খাটিয়ে কাজ করতে হয়। যেমন হলে x এর মান কত,
এ প্রশ্নের উত্তর দিতে তোমাকে বীজগণিতের সূত্র ধরে করতে গেলে যে সময় লাগবে তার চেয়ে x এর মান নিজেই ১, ২ ইত্যাদি ধরে করলে সময় কম লাগবে এমনকি তোমার তো বীজগণিতের সূত্র জানার কথাও না। ২০০ নম্বরের পরীক্ষার জন্য সময় ১৫০ মিনিট অর্থাত্ প্রতি ১ নম্বরের জন্য সময় মাত্র ৪৫ সেকেন্ড। ওই পরীক্ষায় ভালো করার জন্য সবচেয়ে কার্যকরী পরামর্শ হলো প্রশ্ন পড়ো ও সঠিক উত্তরে টিক চিহ্ন দাও বা উত্তর লিখে ফেলো। কঠিন মনে হলে বাদ দাও, সামনে এগিয়ে যাও। এমনকি প্রশ্নটা সাইজে বড় হলে বা অপরিচিত মনে হলেও বাদ দিয়ে এগিয়ে যাও। এভাবে এক ঘণ্টায় যদি ৬০ শতাংশ প্রশ্নের উত্তর করতে পারো, তবে বাকি দেড় ঘণ্টায় ৪০ শতাংশ প্রশ্নের উত্তর করতে তুমি সক্ষম হবে। কারণ ৬০ শতাংশ প্রশ্নের উত্তর করতে পারার কারণে তোমার টেনশনও অনেক কমে যাবে। এভাবে এগিয়ে গেলে তুমি সফল হবেই।

প্রতিটি বিষয়কে গুরুত্ব দেবে:
শুধু এক বিষয় নিয়ে সময় নষ্ট করলে হবে না, তোমাকে সব বিষয়ে কমপক্ষে ৪০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে। তুমি ইংরেজি বা গণিতে ৯০ শতাংশ নম্বর পেলেও কাজ হবে না, যদি তুমি সাধারণ জ্ঞানে বা বাংলায় ৪০ শতাংশ এর কম নম্বর পাও। তাই প্রতিটি বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে উত্তর লিখতে হবে। প্রতিটি বিষয়ে স্বতন্ত্রভাবে পাস করলে এবং মোট পরীক্ষার্থীদের মধ্যে তোমার অবস্থান যদি ছেলেদের মধ্যে প্রথম ৯০০ জন ও মেয়েদের প্রথম ৩০০ জনের মধ্যে থাকে, তবেই তোমাকে মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত করা হবে। সবচেয়ে বড় কথা হলো, ক্যাডেট কলেজের ভর্তি পরীক্ষার জন্য তুমি যে প্রস্তুতি নিয়েছ, তা তোমার ভবিষ্যতের শিক্ষাজীবনকে সুগম করবে।

অধ্যক্ষ
প্রচেষ্টা ক্যাডেট স্কুল, তাজমহল রোড, ঢাকা
 

Related Updates